মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৩৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ ::
সোনালী ব্যাংকের এডি ব্রাঞ্চের সাথে এমডির মতবিনিময় ব্যাংক মালিক ও বাংলাদেশ ব্যাংক লুটপাটকারী ও ঋণ খেলাপিদের সুযোগ করে দিচ্ছে স্বতন্ত্র পরিচালক নিয়োগ নিয়ে কাজ করছে বিএসইসি: শিবলী রুবাইয়াত ব্যাংকিং খাত সংস্কারে স্বাধীন কমিশন গঠনসহ টিআইবির ১০ সুপারিশ অগ্রণী ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক মো. শামছুল আলম ব্যাংকের মাধ্যমে ২ লাখ কোটি ডলারের অবৈধ লেনদেন:ফিনসেনের নথি ফাঁস হিসাব খোলা, আর্থিক লেনদেন সবকিছুর ভরসা মোবাইল ব্যাংকিং পোশাক শিল্প মালিকরা ঋণ শোধে পাঁচ বছর সময় চান সূচকের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে চার স্তরে মার্জিন ঋণ প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে বিএবির ১৬৪ কোটি টাকা অনুদান

করোনা মহামারীর মধ্যেই কর্মীদের পদোন্নতি দিল স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম শুক্রবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৬৬১ বার পঠিত

কোভিড-১৯ এর থাবায় ক্ষতবিক্ষত গোটা বিশ্ব। প্রাণঘাতী ভাইরাসটির ছোবল থেকে রেহাই পাইনি বাংলাদেশও। মহামারী উপেক্ষা করে অকুতভয়ে গ্রাহকদের ব্যাংকিং সেবা দিয়েছেন ব্যাংক কর্মীরা। হাজার হাজার ব্যাংক কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যুবরণ করেছেন এমন সংখ্যাও কম নয়। একদিকে জীবন সংশয়, অন্যদিকে চাকরি হারানোর ভয়- এ দুই নিয়েই উদ্বেগে সময় কাটছে ব্যাংকারদের। তবে এর মধ্যেও রেকর্ড ৫৫০ জনকে পদোন্নতি দিয়ে কর্মীদের পাশে দাঁড়িয়েছে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেড। বেসরকারি এ ব্যাংকটির শীর্ষ নির্বাহী খন্দকার রাশেদ মাকসুদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

করোনায় সৃষ্ট আর্থিক দুর্যোগ সামলাতে অনেক ব্যাংকই কর্মীদের বেতন ১০-২৫ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়েছে। কর্মীদের বেতন-ভাতা কমানো, পদোন্নতি বন্ধসহ ডজন খানেক কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দিয়েছিল বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স (বিএবি)। বেসরকারি ব্যাংকগুলোর উদ্যোক্তাদের এ সংগঠনটির নির্দেশনা অনুযায়ি অনেক ব্যাংকই কর্মীদের বেতন-ভাতা কমিয়েছে। এর মধ্যে কিছু ব্যাংকে শুরু হয়েছে কর্মী ছাঁটাই। তার মধ্যেই স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের রেকর্ড পদোন্নতির খবর এলো।

স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খন্দকার রাশেদ মাকসুদ নিজেও করোনা আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘ সময় হাসপাতালে কাটিয়েছেন। ফুসফুসের সংক্রমনসহ গুরুতর অন্যান্য উপসর্গ নিয়ে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে গতকাল বাসায় ফিরেছেন। হাসপাতালের বেডে বসেই তিনি কর্মীদের পদোন্নতিপত্রে স্বাক্ষর করেছেন বলে বণিক বার্তাকে জানান।

খন্দকার রাশেদ মাকসুদ বলেন, মহামারীতে সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে ব্যাংকাররা নিজেদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করেছেন। এ অবস্থায় কর্মীদের অনুপ্রেরণা দেয়ার জন্যই পদোন্নতি দেয়ার দরকার ছিল। সবদিক বিবেচনায় রেখেই আমরা ৫৫০ জন কর্মীকে পদোন্নতি দিয়েছি। ব্যাংকের চেয়ারম্যানসহ পরিচালনা পর্ষদের আন্তরিক সহযোগিতায় এটি সম্ভব হয়েছে। মহামারীর এ সময়ে কাজটি কষ্টকর হলেও আমাদের মানবসম্পদ বিভাগ সফলভাবে সম্পন্ন করেছে। গত দুই সপ্তাহ আমার নিজের শরীরের উপর দিয়েও ঝড় বয়ে গেছে। আপাতত হাসপাতাল থেকে ছাড় পেলেও চিকিৎসকরা এক মাস বিশ্রামে থাকতে বলেছে বলে তিনি জানান।

স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের কর্মকর্তাদের পদোন্নতির খবর শুনে বিভিন্ন ব্যাংকের কর্মকর্তা ও নির্বাহীরা স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও পরিচালনা পর্ষদকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তারা মনে করেন, অন্যান্য ব্যাংকগুলোকেও স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের এ ধরনের ইতিবাচক পদক্ষেপকে অনুসরন করা উচিত। কারণ একটি ব্যাংকের উন্নয়ন অনেকাংশে নির্ভর করে কর্মীদের শক্তিশালী মনোবলের উপর। পদোন্নতি কর্মীদের মনোবলকে দৃঢ় করে সেসাথে ব্যাংকের প্রতি অধিক আত্ননিয়োগের প্রবণতা বৃদ্ধি পায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019 Bankbimabd
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebazarbankbimabd41